২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১২

ক্রোন দিয়ে সাইটের ডাটাবেজ ও ডিরেক্টরি অটোমেটিক ইমেইলে পাঠানোর স্ক্রিপ্ট

নিয়মিত সাইটের ব্যাকআপ নেওয়া অনেকের কাছেই বিরক্তিকর এবং সমস সাপেক্ষ কাজ। তার ওপর যাদের লিমিটেড ব্যান্ডউইথ প্যাকেজ তারা বিশাল আর্কাইভ নামাতেই হয়রান হয়ে যান। যদি এমন হয় যে সাইটের ডাটাবেজ, ফোল্ডার বা দরকারী সব কিছু অটোমেটিক আপনার ইমেইল চলে আসবে তাহলে মন্দ হয়না। অটোমেটিক ব্যাকআপ নেওয়ার অনেক রকম উপায় আছে। আমার কাছে সবচেয়ে ভাল লেগেছে সিপ্যানেলের ক্রোন অপশনটি।

ক্রোন কি

ক্রোন হল লিনাক্সে শিডিউল টাস্ক ম্যানেজ করার সার্ভিস্ এটা দিয়ে যেকোন কাজ শিডিউল করে রাখা যায়। আর লিনাক্সে যেহেতু সকল অ্যাপলিকেশনেরই কনসোল ইন্টারফেস আছে এবং কলাইন কমান্ড লিখেই সহজে যেকোন কাজ করা যায়, ক্রোণে সেই কমান্ড লাগিয়ে দিলেই সেটা শিডিউল অনুযায়ী এক্সিকিউট হয়।

২৪ আগস্ট, ২০১২

লিনাক্সে পিএইচপি, মাইএসকিউএল সহ এঞ্জিনএক্স সার্ভার কনফিগার করা এবং উইন্ডোজের জন্য এঞ্জিনএক্স

nginx বা এঞ্জিনএক্স হল দুনিয়ার অন্যতম দ্রুতগতির ওয়েব, মেইল ও প্রক্সি সার্ভার। সার্ভার সেটআপ করতে সবাই প্রথমে এপাচির কথা বলবেন। তবে এঞ্জিনএক্স এপাচির চেয়ে অনেক দিক দিয়ে ভাল একটা সার্ভার। কেন? কিভাবে? সব বলার জন্যেই আজকের এই পোস্ট লিখছি।

▶▷ এঞ্জিনএক্স এর শুরুর কথা
এঞ্জিনএক্স এর কাজ শুরু হয় ২০০২ সালে। কাজাখাস্তানের Igor Sysoev এপাচির সাথে প্রোজেক্ট হিসেবে এঞ্জিনএক্স এর কাজ শুরু করেন। কিন্তু পরে দেখা যায় পারফর্মেন্স ও সিকিউরিটির দিক দিয়ে এঞ্জিনএক্স এপাচির চেয়েও ফ্লেক্সিবল। তারপর থেকে স্বতন্ত্র ওয়েব সার্ভার হিসেবে এঞ্জিনএক্স এর কাজ শুরু হয় এবং ২০০৪ সালে পাবলিক রিলিজ দেওয়া হয়। আর হ্যা, এঞ্জিনএক্স ওপেন সোর্স প্রোজেক্ট।

১০ আগস্ট, ২০১২

নকিয়ার পর কিউট এখন ডিজিয়ার অধীনে


কিউট ফ্রেমওয়ার্ক সম্পর্কে আশা করি অনেকেই জানেন। কিউট হল প্রথম ট্রলটেকের তৈরী ক্রসপ্লাটফর্ম ফ্রেমওয়ার্ক যা দিয়ে উইন্ডোজ, লিনাক্স, ম্যাক, সিম্বিয়ান, অ্যান্ড্রয়েড, মিগো ইত্যাদি প্লাটফর্মের জন্য অ্যাপলিকেশন তৈরী করা যায়।
  • ২০০৮ সালে নকিয়া ১৫৩ মিলিয়ন ডলারে কিউট ফ্রেমওয়ার্ক কিনে নেয় নরওয়ের ছোট্ট কোম্পানি ট্রলটেকের কাছ থেকে। কিউটের দুই ধরনের লাইসেন্স আছে। একটা হল ওপেনসোর্স লাইসেন্স ও আরেকটি কমার্শিয়াল লাইসেন্স। ওপোনসোর্স লাইসেন্সের অধীনে ফ্রিতে কিউট অ্যাপলিকেশন তৈরী ও ডিস্ট্রিবিউট করা যায়। তবে "কমারশিয়াল-অনলি" নামে কোন ফিচার কিউটে রাখা হয়নি বলা হয়।

৬ মে, ২০১২

লিনাক্সের জন্য ডাউনলোড ম্যানেজার ও মিডিয়া গ্র্যাবার

নোট: পোস্টটি বেশ পুরনো। ডাউনলোড ম্যানেজার হিসেবে XDM, FatRat, Uget এবং যেকোন ওয়েবসাইট থেকে ভিডিও ডাউনলোড করতে youtube-dl ব্যাবহার করতে পারেন।

বেশীরভাগ ব্যবহারকারী লিনাক্সে এসে প্রথমেই যেটা খুজেন সেটা হল কিভাবে ইন্টারনেট ব্যবহার করা যায়। ঠিক তার পরেই খোজেন ডাউনলোড করবেন কিভাবে। ফায়ারফক্স, ক্রোমিয়াম ব্রাউজার ক্রসপ্লাটফর্ম হওয়ার সেগুলোর অ্যাডঅন/এক্সটেনশন নিয়ে ঝামেলা না হলেও আইডিএম না থাকায় বিপদে পড়ে যান অনেকেই। ওয়াইন দিয়ে আইডিএম চালাতে পারলেও ক্ষেত্রে ব্রাউজার ইন্টিগ্রেশন বড় একটা সমস্যা হয়ে যায়। তো আসুন দেখাই কিভাবে ব্রাউজারকে ডাউনলোড ম্যানেজারের সাথে ইন্টিগ্রেট করাবেন এবং ওয়েব পেইজে থাকা বিভিন্ন মিডিয়া ফাইল যেমন ভিডিও, অডিও, ফ্লাশ ইত্যাদি ডাউনলোড করবেন।

৩০ এপ্রিল, ২০১২

উবুন্টু ১২.০৪ সহ অন্যান্য ডিস্ট্রিবিউশনের জন্য গ্রাফিকাল ওয়াইম্যাক্স কানেকশন ম্যানেজার

Banglalion WiMAX for Ubuntu প্রজেক্টের আপডেটের কাজ চলছে। আশা করা যায় আগামী ২ মাসের মাঝে উবুন্টু 15.04 এবং সমমানের লিনাক্স ডিসট্রোর সাথে ঠিকমত কাজ করে এমন ভার্শন বের হবে।

গতবছরের সেপ্টেম্বর মাসের ৫ তারিখে বাংলাদেশে লিনাক্সের প্রচার ও প্রসারে নতুন একটি দিক উন্মোচিত হয়। সেটা হল বাংলালায়ন কোম্পানির তিনটি ডিভাইস লিনাক্সের ৩২বিট প্লাটফর্মে চালানো সম্ভব হয়। তারপর জনসাধারণের জন্য যেসব প্যাকেজ (৪টি) রিলিজ করা হয় সেগুলো শুধুমাত্র উবুন্টু/সমমানের ডেবিয়ান ডিস্ট্রিবিউশনের জন্য প্রযোজ্য ছিল। তার পরবর্তী ৬-৭ মাসে প্রচুর ইউজার ফীডব্যাক, সাজেশন, ট্রিক ইত্যাদি পর্যালোচনা করে পুরো সিস্টেমটি কমান্ডলাইন ও পাসওয়ার্ডের ঝামেলা থেকে সরিয়ে পুরো গ্রাফিকাল প্রোজেক্টে নেওয়া হয়েছে। সেই সাথে যুক্ত হয়েছে উবুন্টু বাদে আরো কয়েকটি ডিস্ট্রিবিউশনের জন্য সাপোর্ট যেন ইউজার নিজের পছন্দমত এনভায়রনমেন্টে কাজ করার সুযোগ পায়। প্রোজেক্টটি সম্পুর্ণ ওপেন সোর্স এবং ফ্রি (এবং অবশ্যই নন-কমার্শিয়াল)। পরবর্তীতে এর সাথে আরো কিছু ফিচার যুক্ত করার ইচ্ছা রয়েছে আমাদের। এখন গ্রাফিকাল ওয়াইম্যাক্স কানেকশন ম্যানেজারের ডাউনলোড, ইন্সটল করার নিয়ম, ব্যবহার ইত্যাদি সম্পর্কে বলছি।